বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনী 2023 – Justice Abhijit Gangopadhyay Biography In Bengali

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনী - Justice Abhijit Gangopadhyay Biography In Bengali

অভিজিৎ গাঙ্গুলী, বর্তমানে যিনি হলেন সমাজের অসহায় মেধাবী প্রতিবাদী চাকুরী প্রার্থীদের ভগবান। যিনি অন্যায়ের সাথে কোনদিন আপস করতে শেখেনি। আজ আমরা আপনাদের কাছে ভগবান বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনী তুলে ধরতে চলেছি। আপনারা এই পোষ্টের মাধ্যমে অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনী, কর্মজীবন, উল্লেখযোগ্য রায় এবং অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় রহস্য সম্পর্কিত বিভিন্ন অজানা তথ্য সম্পর্কে জানতে পারবেন।

” যারা দুর্নীতি করেছে, করে আসতেছে,ধরা পড়লেই চাকরি যাবে।

যারা অসৎভাবে চাকরি পেয়েছে, সবার চাকরি যাবে।

তারা কেউ যেন নিশ্চিন্তে না থাকে, সবার শাস্তি হবে।”

“বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনীJustice Abhijit Gangopadhyay Biogaphy in Bengali

অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সংক্ষিপ্ত জীবনী (Short biography of Abhijit Gangopadhyay)-

প্রকৃত নামঅভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়
সংক্ষিপ্ত নামঅভিজিৎ গাঙ্গুলী
জন্ম১৯৬২ সাল
ধর্মহিন্দু
রাশিচক্রধনু রাশি
বৈবাহিক অবস্থাবিবাহিত
কলেজহাজরা ল কলেজ
জাতীয়তাভারতীয়

শিক্ষাজীবন (Education life)

বিচারপতি শ্রী অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মিত্র ইনস্টিটিউট থেকে স্কুল জীবন শেষ করেন। তিনি হাজরা ল কলেজে (Hazra Law College) 1979 সালে পড়া শুরু করেন। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় পড়াশুনো চলাকালীন তিনি “অমিত্র চন্দ্র” নামের একটি বাংলা রঙ্গমঞ্চের সাথে যুক্ত ছিলেন।

বিদ্যালয়মিত্র ইনস্টিটিউট
কলেজ হাজরা ল কলেজ

বাবা-মা এবং আত্মীয়-স্বজন (Parents and relatives)

অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বাবার নাম হল রমা প্রসাদ গাঙ্গুলী এবং মায়ের নাম হল শেফালী গাঙ্গুলী। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের একজন বড় ভাই রয়েছে যার নাম হল আদিত্য গাঙ্গুলী।

বাবার নামরামা প্রসাদ গাঙ্গুলী
মায়ের নামশেফালী গাঙ্গুলী
বড়ো ভাইআদিত্য গাঙ্গুলী

কর্মজীবন (Career)

অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় তার কর্মজীবন শুরু করেন উত্তর দিনাজপুর জেলার পশ্চিমবঙ্গ সিভিল সার্ভিসের ” ” গ্রেডের অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় অফিসার হিসেবে। পরবর্তী সময়ে সরকারি স্তরের বিভিন্ন দুর্নীতির কারণে তিনি চাকরি ছেড়ে দেন এবং কলকাতা হাইকোর্টে বাংলা আইনজীবী হিসেবে অধ্যায়ন শুরু করেন। এইভাবে তিনি 10 বছর আইনজীবী হিসেবে কাজ করেন। এরপর 2018 সালের মে মাসে কলকাতা হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত হন অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় কে। এরই কিছু সময় পর 2020 সালের 30 জুলাই শ্রী অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় কলকাতা হাইকোর্টের স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত হন। এই আসনে বসে তিনি কয়েকটি উল্লেখযোগ্য রায় দান করে চলেছেন। আগামী দিনেও অন্যায়ের বিরুদ্ধে এইরূপ আরো রায় প্রদান করবে বলে মনে করা হয়।

উল্লেখযোগ্য রায়দান (Significant judgment)

মাননীয় অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় 60 এর বেশি বয়স্ক মানুষদের জন্য তিনি যে কয়েকটি রায় প্রদান করেছেন তা কতটা গুরুত্বপূর্ণ বলার অপেক্ষা রাখে না। মাননীয় অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় দুর্নীতি সংক্রান্ত মামলার বিরুদ্ধে একের পর এক উল্লেখযোগ্য রায় দিয়েছেন। মাননীয় অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এর নেওয়া উল্লেখযোগ্য রায় গুলির মধ্যে একটি আশ্চর্যজনক রায় হল –

ক্যান্সারে আক্রান্ত শিক্ষিকার 12 দিনের বেতন অন্যায় ভাবে কেটে নিয়েছিলেন প্রধান শিক্ষক। এইরূপ ঘটনার সমস্ত কিছু জানার পরে মাননীয় অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় মহাশয় প্রধান শিক্ষকের পথ কেড়ে নিয়ে শিক্ষিকার বকেয়া মাইনে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। এছাড়াও 76 বছর বয়সের স্কুল শিক্ষিকার দীর্ঘ 25 বছরের বকেয়া বেতন পাইয়ে দেওয়ার ব্যবস্থাও তিনি করেছিলেন।

2021 সালের নভেম্বর মাসে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়ায় পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশনের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তে একাধিক নির্দেশনা প্রদান করেছিলেন। এর ফলে বিভিন্ন রকম তদন্ত চলতে থাকে। এরপর রাজনৈতিক পরিস্থিতির খারাপ হয়ে ওঠে। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে সিবিআই এর সামনে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন শিক্ষক নিয়োগের কেলেঙ্কারি তদন্তের জন্য ।প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং প্রাক্তন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী গ্রেপ্তার হয়েছিলেন শুধুমাত্র মাননীয় বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য। তিনি 2022 সালে 13 এপ্রিল এমনকি আদালত বয়কটের সিদ্ধান্ত নেয়।বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় হলেন একমাত্র এসএসসি চাকরি প্রার্থীদের কাছে আশা ভরসার একটি বড়ো স্থান।

বিচারপতির ফিটনেস এর রহস্য (Justice’s secret to fitness)

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নিজেকে ফিট রাখার জন্য একটি রুটিন মেনে চলেন। তিনি প্রতিদিন সকাল 9 টা নাগাদ ঘুম থেকে ওঠেন তারপর আদালতে যাওয়ার প্রস্তুতি নেন।আদালতে বেরোনোর আগে রুটি এবং অল্প তেলে রান্না করা বিভিন্ন রকমের সবজি দিয়ে রান্না করার তরকারি খেয়ে নেন। বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের ডায়াবেটিস রয়েছে তাই জন্য তাকে দুবেলা ইনসুলিন নিতে হয়। সেই জন্য তিনি ভাত খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন। শুধুমাত্র রবিবার অল্প ভাত খান।

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রিয় খাবার নাকি বিরিয়ানি এবং কচুরি আলুর দম এটি পারিবারিক সূত্রে জানা গেছি। এছাড়াও অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় হলেন চা প্রিয়সি। তিনি চা খেতে অসম্ভব ভালোবাসেন। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বন্ধুদের মতে বিচারপতি অভিজিৎ মহাশয় কে বাইরে থেকে কঠোর মানুষ মনে হলেও ভেতরে রয়েছে এক মজাদার মানুষ।

বই ও সিনেমা প্রেম (Love books and movies)

মাননীয় বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বই পড়তে খুবই ভালোবাসেন এবং নতুন নতুন বিখ্যাত মানুষদের জীবনী সম্পর্কে জানার আগ্রহ রাখেন। তবে শুধুমাত্র আইনের বই নয়। ইংরেজি এবং বাংলা সাহিত্য পড়তে তিনি খুবই ভালোবাসেন। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় পছন্দের কবি হলেন জীবনানন্দ এবং জয় গোস্বামী।

বই পড়া ছাড়াও সিনেমা দেখতে খুবই ভালোবাসেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তার পছন্দের সিনেমায় তালিকায় রয়েছে – “কোনি”, “অরণ্যের দিনরাত্রি”, “দাদার কীর্তি”

প্রোফাইল (Profiles)

Facebookজানা নেই
Instagramজানা নেই
Twitterজানা নেই
WikipediaAbhijit Gangopadhyay

উপসংহার (Conclusion)

দুর্নীতির বিরুদ্ধে এইরূপ সাহসিকতার সাথে দাঁড়িয়ে মন ছুঁয়েছেন হাজারো হাজারো বিচার প্রার্থীর। আমাদের সমাজে সৎ ও আদর্শনিষ্ঠ মেধাবী প্রতিবাদী চাকুরি প্রার্থীদের আসার আলো দেখাতে পারেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। বর্তমানে এই মানুষটিকে নিয়ে অনেক আশা ও আকাঙ্ক্ষা. ভালো থাকুক সুস্থ থাকুক আমাদের প্রিয় বিচারপতি মহাশয় অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

“বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনীJustice Abhijit Gangopadhyay Biogaphy in Bengali” – FAQ

Q-1.অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের আসল নাম কি? (What is the real name of Abhijit Gangopadhyay?)

Ans. অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের আসল নাম হল অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

Q-2.অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বয়স কত? (How old is Abhijit Gangopadhyay?)

Ans. অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বয়স হলো 60 বছর।

Q-3.অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় স্ত্রীর নাম কি?(Or what is the name of Abhijit Gangopadhyay’s wife)

Ans. অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় তৃণ নাম জানা যায়নি।

Q-4. অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিবারে কে কে রয়েছেন?(Who is in Abhijit Gangopadhyay’s family?)

Ans.অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় বাবার নাম হল রমা প্রসাদ গাঙ্গুলী এবং মায়ের নাম হল শেফালী গাঙ্গুলী। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের একজন বড় ভাই রয়েছে যার নাম হল আদিত্য গাঙ্গুলী। অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় স্ত্রী এবং সন্তান এর সম্পর্কে তেমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

“বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনীJustice Abhijit Gangopadhyay Biogaphy in Bengali

অসংখ্য ধন্যবাদ আমাদের এই পোস্টটি “বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনীJustice Abhijit Gangopadhyay Biogaphy in Bengali” পড়ার জন্য।এই পোস্টটি “বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনীJustice Abhijit Gangopadhyay Biogaphy in Bengali” কেমন লাগলো তা কমেন্টের মাধ্যমে জানান। আশা করি পোস্টটি আপনাদের কে শাস্তি সম্পর্কে অনেক তথ্য জানতে সাহায্য করেছে।আমরা এই সমস্ত তথ্যগুলি অনেক রকম ভাবে ভালোভাবে অনুসন্ধান করে সঠিক তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করি।যদি কোনো তথ্য ভুল মনে হয়ে থাকে তাহলে মন্তব্য ফর্মটি পূরণ করে আমাদেরকে শেয়ার করতে পারেন।এরকম আরো মানুষের জীবনী সম্পর্কে জানতে আমাদের এই সাইটটিকে bongbio.com ফলো করুন।

ধন্যবাদ!

মন্তব্য করুন